আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি

আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি's Category :

আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি's Publication :

আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি's Writer :

আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি


"আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি" বইটির মূল্য

নতুন বইঃ 48 Taka


"আমি জুনাইদ জামশেদ বলছি" বইটির বিস্তারিত

#উত্তরে_মাওলানা_তারিক_জামিল_বললেন, ‘আমি তো তোমাকে দেখছি না। আমি আল্লাহর কুদরত দেখছি।’
......................

‘আমি উলামা হযরাতের অবস্থানস্থলে পৌঁছে দেখতে পেলাম, একছেলে বড় একটি লাঠি নিয়ে মৌলভী তারেক জামিল সাহেবের কামরার বাইরে দাঁড়িয়ে আছে। আমাকে দেখে সে হাসিমুখে বললো, ‘জুনাইদ ভাই! আপনি এখানে কী করছেন?’
ইজতিমা ময়দানে ইতোমধ্যে আমার তিন দিন কেটে গেছে। আমি বললাম, ‘একথা কেন জিজ্ঞেস করছো? আমি কেন ইজতিমায় আসতে পারবো না? তুমি কি আমার চেয়ে বড় মুসলমান?’
হাসতে হাসতে সে উত্তরে বললো, ‘না, না। আমি সে কথা বলিনি। আপনাকে দেখে আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম বলে, এমন প্রশ্ন করেছি। আচ্ছা বলুন, সংরক্ষিত এই জায়গায় আপনার কী কাজ? আমি আপনার অনেক বড় ভক্ত।’
আমি বললাম, ‘ঠিক আছে। আমার এক কাজ করে দাও। আমি মৌলভী তারেক জামিল সাহেবের সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছি। তুমি তার বন্দোবস্ত করে দাও।’
সে বললো, ‘ভাই! তার সঙ্গে কারো দেখা করার অনুমতি নেই।’
আমি বললাম, ‘আগে তুমি গিয়ে তাকে বলো, আপনার সঙ্গে একজন দেখা করতে চাচ্ছে।’
মাথা নেড়ে সে বললো, ‘ঠিক আছে। আমি চেষ্টা করে দেখছি।’

এ কথা বলে সে ভেতরে গেলো। ভেতরে ঢুকে কিছুক্ষণের মধ্যেই ফিরে এসে বললো, ‘আপনি ভেতরে আসুন।’
আমার বন্ধু জুনাইদ গনী আমাকে ভেতরে নিয়ে গেলো। বিশ্বাস করুন, আমি আমার জীবনে কোনোদিন মাওলানা তারেক জামিল সাহেবকে একাকী বসে থাকতে দেখিনি। কিন্তু সেদিন তিনি একা ছিলেন। সম্ভবত এটি আল্লাহর সিদ্ধান্ত ছিলো। তিনি চেয়েছিলেন, আমি যেন সেদিন তাঁর সঙ্গে একাকী সাক্ষাত করি।
বন্ধু জুনাইদ গনী ভেতরে গিয়ে বললেন, ‘মাওলানা! আমার এক বন্ধু আছে। নাম জুনাইদ জামশেদ। সে আপনার সঙ্গে দেখা করতে চাচ্ছে।
মাওলানা বললেন, ‘কে? জুনাইদ জামশেদ!’
আমি বাইরে দাঁড়িয়ে তাদের কথাবার্তা শুনছিলাম। আমি তখন ভীষণ অবাক হলাম যে, মাওলানা কীভাবে আমাকে চেনেন! মাওলানা তাগাদা দিয়ে বললেন, ‘জলদি তাকে ভেতরে পাঠাও।’

আমি ভেতরে প্রবেশ করলাম। মাওলানা তারেক জামিল সাহেব আমার বন্ধু জুনাইদকে বললেন, ‘তুমি বাইরে চলে যাও। ওখানে বসে অপেক্ষা করো।’
আমি ভেতরে ঢুকে মাওলানার বেশ কাছে বসে পড়লাম। মাওলানা আমার দিকে তীক্ষ্ণ চোখে তাকাতে লাগলেন। আমি জিজ্ঞেস করলাম, ‘মাওলানা! আপনি কেন এভাবে আমাকে দেখছেন?’
উত্তরে তিনি বললেন, ‘আমি তো তোমাকে দেখছি না। আমি আল্লাহর কুদরত দেখছি।’
আমি জিজ্ঞেস করলাম, ‘মাওলানা, আমি বুঝিনি। একটু খুলে বলুন।’
মাওলানা বললেন, ‘ফয়সালাবাদে রাস্তার মোড়ে মোড়ে তোমার ইয়া বড় বড় বিলবোর্ড লাগানো রয়েছে। আমি প্রায়সময় সেই বোর্ডগুলো দেখে মনে মনে বলতাম, ‘দুনিয়ার সবাই হেদায়াত পাচ্ছে। এ লোকটি হিদায়াত পাচ্ছে না।' আজ আমি যখন ইজতিমায় অংশগ্রহণ করার জন্যে বিমানবন্দরে আসি তখন সেখানে একটি বিশাল বিলবোর্ডে তোমার ছবি চোখে পড়ে। তখন এমনিতেই আমার মনে এ দুআ জেগে ওঠে যে, হে আল্লাহ! এ লোকটার সঙ্গে যেন আমার সাক্ষাত হয়ে যায়। আর সেই তুমি এখন আমার সামনে বসে আছো। আমি আল্লাহর কুদরত দেখছি।’
0